প্রচন্ড পরিমান ডিপ্রেশনে ভুগছি। এর থেকে পরিত্রানের উপায় কি???

Administrator Member Since Oct 2016
Flag(0)
Mar 23, 2013 08:51 AM 2 Answers
Subscribe

২০১২ সালে আমি এইচ.এস.সি পাস করি। রেজাল্ট আসলে ভালো হতে গিয়েও ভালো হয়নি। জিপিএ ৪.৯ পেয়েছিলাম। তাই একটা আফসুস আর হতাশা কাজ করতো রেজাল্টের পর থেকে। আরো বেশী পরিমান হতাশা কাজ করলো যখন কোনো পাবলিক ভার্সিটিতে চান্স পাই নাই। তাই বাসায় বললাম প্রাইভেটে পড়বো। কিন্তু বাসা থেকে জানালো প্রাইভেটে পড়াবে না। দ্বিতীয়বার চেষ্টা করতে হবে পাবলিক ভার্সিটির জন্য। কিন্তু পড়াশুনায় আগের মত আগ্রহ পাচ্ছি না। তার উপর এক বছর গ্যাপ দেয়া আমার হতাশাকে আরো বাড়িয়ে দিল। নিজেকে প্রচন্ড রকমের ব্যর্থ মানুষ মনে হয়। ছোটকাল থেকে ইচ্ছে ছিল কম্পিউটার সায়েন্সে পড়বো কিন্তু পাবলিক ভার্সিটিতে চান্স পেলেই কম্পিউটার সায়েন্স পাওয়া যায় না। ভালো রেজাল্ট করতে হয় ভর্তি পরীক্ষায়। নিজের সামনে নিজের স্বপ্নটার মৃত্যুকে মেনে নিতে পারছিনা আমি। বারবার শুধু মনে হয় আমি যদি এবারও চান্স নাইও পাই??? তাহলে আমি কি করবো??? পড়তে বসলে মাথায় হাজারো চিন্তা ঘুরপাক খায়। তাই সিদ্ধান্ত নিলাম পড়াশুনার পাশাপাশি অন্যান্য কাজ নিয়ে একটু ব্যস্ত থাকলে হয়তো পড়াশুনায় কিছুটা হলেও মন বসাতে পারবো। তাই গীটার শেখা শুরু করলাম। কিন্তু তাতেও কাজ হচ্ছে না। পড়াশুনাতে কোনো ভাবেই মন বসাতে পারছি না। আমার কিছু ব্যাড হ্যাবিট আছে। আমি পিসিতে অনেক সময় ব্যয় করি। নেট ব্রাউজিং, মুভি দেখা আর গেম খেলে সময় ব্যয় করতে বেশী পছন্দ করি। তাছাড়া, আমি অনেক রাত জাগি। রাত ৪টার আগে আমার ঘুম আসে না। আমি অনেক চেষ্টা করেও রাতে দ্রুত ঘুমাতে পারি না। এই সব কিছু মিলিয়ে আমি নিজের লাইফের উপর অনেক বিরক্ত। খুব বেশী পরিমানে ডিপ্রেশন কাজ করছে আমার মাঝে। আমি কিভাবে তা কাটিয়ে উঠবো???
1 Subscribers
Submit Answer
Please login to submit answer.

2 Answers
Sort By:
Best Answer
0
AnswersBD Administrator Mar 23, 2013 10:31 AM
Flag(0)

আপনার সমস্যা গুলো পড়লাম…

যদিও আমি ডাক্তার বা অভিজ্ঞ নই তারপরও আমার বাস্তবতা থেকে আপনার মন কে শক্ত করাতে চেষ্টা করে যাব…

সব পাগলের চিকিৎসা যেমন সব ডাক্তার করতে পারেন না ঠিক তেমনি সব মনের সমস্যার চিকিৎসা অনেক সময় ঔষধ দিয়ে নাও হতে পারে…

আপনার মনের সবচেয়ে বড় ডাক্তার এবং সবচেয়ে ভাল ঔষধ আপনি নিজেই… আপনার দৃষ্টিভঙ্গি, আপনার  পারিপার্শ্বিকতা, অভিজ্ঞতা সবচেয়ে বড় সম্পদ আপনার যেকোন সমস্যা মোকাবেলা করার জন্যে

আজ যে সমস্যা আপনার কাছে অনেক বড় পাহাড় সমান মনে হচ্ছে তা আগামী কাল ছেলে খেলার মত লাগতে পারে এবং বেশির ভাগ মানুষের জীবনে তাই হয়ে চলছে

যারা সাহসিকতা ধরে রেখে সমস্যার মোকাবেলা করে গেছেন তারাই সফল হয়েছেন তাদেরকেই আমরা জ্ঞানী গুনী প্রজ্ঞাবান বলেই চিনি, বইয়ের পাতায় তাদেরকেই ঘন্টার প ঘন্টা তাদের ইতিহাস মুখস্থ করে যাই… তাদের গল্প আমরা নিজেরাই ছড়িয়ে দেই আমাদের পরবর্তী প্রজন্ম দের মধ্যে

যাই হোক অনেক জ্ঞানী কথা বলে ফেললাম তবে ভেবে দেখেছেন কি!!  তারাও কিন্তু আমাদের মত রক্তে মাংসে গড়া মানুষ ছাড়া আর কিছুই নয়

আপনার কাছে এখন ভাল একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি এখন অনেক বড় সমস্যা বলে মনে হচ্ছে … অনেকের এই স্বপ্ন থাকে আমার নিজের বেলাও এটাই ছিল

প্রথমবার সরকারী কলেজে ভর্তি হয়ে থেকেছিলাম তারপর ২য় বারের বেলায় একটা পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ৩টি ডিপার্টমেন্ট এ চাঞ্জ পাই

এখানেও স্বপ্ন ভংগ হয়ে যায় ইচ্ছা ছিল ইলেক্ট্রিক ইঞ্জিনিয়ার হবার কিন্তু বিধি বাম ওয়েটিং আর টানল না (যদিও প্রতিবারই ৫০০তম কে ভর্তির যুযোগ পায় আমার ছিল ১৯৯তম)

যাই হোক ফলিত গনিত নিয়ে পড়লাম … অনেকেই নামই জানে না!! ভাবে বিশাল সাবজেক্ট বিশাল ভবিষ্যত মানে বিশাল ফিউচার আরকি!!!

নিজে একটু বেশি বাস্তববাদী তাই প্রথম থেকেই সতর্ক ছিলাম আসলেই কি এই সাবজেক্ট এর কোন মুল্য আছে বাংলাদেশ এর প্রেক্ষিতে ২য় বর্ষে পড়া অবস্থায় একটু দ্বিধাগ্রস্থ ছিলাম কোন দিকে এগুবো

তাই ডিপার্টমেন্ট এর পাশাপাশি অন্য স্কিল গুলোর দিকে বেশি সময় দিচ্ছিলাম ঠিক যখন আমার অনেক বন্ধু নিশ্চিন্তে তাদের প্রেমের ইতিহাস গড়ে চলেছেন

যাই হোক মাস্টার্স রেসাল্টে প্রায় ৩৫জন ফার্স্ট ক্লাস পেয়ে অনেক উত্তেজিত অনন্দিত তবে আমি পাইনি (কোন দুঃখ করিনি)

রেসাল্ট এর দেড় বছর হয়ে গেসে এখন পর্যন্ত ২-১ জনের ছাড়া কারও ভাল কোন চাকুরী এর খবর পাইনি (আমি জানি তারা একসময় অনেক বড় চাকুরী বা ভাল কিছু করবেন)

তারা অনেকেই আজ হতাশায় ভুগছেন … অনেকেও এটাও বলছেন লেখাপড়ার কোন মুল্যই নাই (শালা!!!) আর ফার্স্ট ক্লাস তো ছাই-পাস

(নিজের সম্পর্ক বড় কিছু বলার ইচ্ছা নাই) তবে আমার বন্ধুরা ঠিক যখন একটা চাকুরীর জন্যে হন্যে হয়ে রাত দিন আবার লেখাপড়া করে  যাচ্ছে… ঠিক আমি তখন একটা কোম্পানী কে এগিয়ে নিয়ে যাবার ব্যস্ত সময় পার করছি কিভাবে নতুন কর্মসংস্থান করা যায় তার জন্যে পরিশ্রম চালাচ্ছি

আর এই কাজে কোন দিন আমাকে একটা সার্টিফিকেট দেখাতে হয়নি তাই আপাতত বাক্সবন্ধি হয়েই আছে আমার ২০ বছরের কষ্টে অর্জিত সার্টিফিকেট

তার মানে এই নয় যে যে সার্টিফিকেট গুলো কাজে লাগবে না তবে

আমার দৃষ্টিতে জীবন টা অনেক বড়………………………………………….. অনেক বিশাল……………………………..

এই জীবনে দুই একটা বিশ্ববিদ্যালয় এর পাশ, সার্টিফিকেট একেক টা মুহুর্ত মাত্র ঠিক পরের মুহুর্তে এটার দরকার নাও হতে পারে

 স্বপ্ন দেখে যান চেষ্টা চালিয়ে যান, পরিশ্রম করে যান …

আর মহান স্রষ্টার কাছে প্রার্থনা করে যান

আপনার স্বপ্ন, আপনার চাওয়া অবশ্যই সফল হবেই


আপনার জন্যে অভিনন্দন যে আপনার সমস্যা গুলো চিহ্নিত করতে পেরেছেন, আশা করি যেগুলো কে সমস্যা হিসেবে দেখেছেন সেগুলো থেকে আস্তে আস্তে মুক্তির পথও আপনি খুজে পাবেন

আপাতত

** একা একা বেশি সময় পার করবেন না

** ধূমপান বা মাদক এর অভ্যাস থাকলে আপনার কাছে কাউকে জানান এবং ছাড়ার চেষ্টা করুন

** আপনার সমাজে একটা দায়িত্ব আছে সেটা ভাবতে থাকুন

** আপনার জীবনের অনেক মুল্য আছে আপনি ইচ্ছা করলেই আরো দশ জনের অবস্থার পরিবর্তন করতে পারেন এই রকম চিন্তা মাথায় নিয়ে আসুন

** আপনার প্রতি সবার ভালবাসা এবং শ্রদ্ধা বাড়িয়ে তুলোয়ার জন্যে অন্য সবাইকে ভালবাসুন এবং শ্রদ্ধা করুন

 

Sign in to Reply
Replying as Submit
Best Answer
0
AnswersBD Administrator Mar 23, 2013 10:04 AM
Flag(0)

ভাইয়া আপনার কথা বুঝতে পারলাম । আপনার পরিস্থিতিও বুঝতে পেরেছি । আপনাকে বলতে পারি যে , আত্মবিশ্বাস হারাবেন না । মানুষের জীবনে এটি অনেক বড় একটি বিষয় । আপনি যদি এই মুহূর্তে এইভাবে ভেঙে পরেন ,…তাহলে হবে না । আপনি নিজেকে এত ছোট কেন মনে করছেন …??? আপনি ছাড়াও আরও অনেক মানুষ রয়েছে যারা আপনার চেয়েও বেশি দুঃখ-কষ্টে আছে । নিজেকে এতটাও ছোট মনে করেন না । নিজের ইচ্ছাকে সবসময় প্রাধান্য দিয়েন । অন্যের কথা শুনে নিজেকে খারাপ মনে করবেন না । মানুষ তো অনেক কিছুই বলে …!!!…, কিন্তু ওগুলো ভাবতে থাকলে তো আপনার নিজের জীবনের বারটা বেজে যাবে । রাতের বেলা বেশিক্ষণ জেগে না থাকায় ভালো । নিজেকে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হবার উপযুক্ত হওয়ার জন্যে আপনার যথেষ্ট সময় আছে । ” ইচ্ছাশক্তি সবচেয়ে বড় শক্তি – এই কথাটি সবসময় মাথায় রাখবেন ।


যদি আপনি খুব মারাত্নক ভাবে ডিপ্রেশনে থাকেন তাহলে আপনি একজন মানসিক ডাক্তারের পরামর্শ নিতে পারেন ।

Sign in to Reply
Replying as Submit