ঘুম নিয়ে বিশাল সমস্যায় আছি প্লিজ প্লিজ প্লিজ ভালো একটি সমাধান দিন ……….

Administrator Member Since Oct 2016
Flag(0)
Apr 09, 2013 05:44 AM 3 Answers
Subscribe

 

আমি একটি চাকুরী করি তাই সকাল ১০টার মধ্যে আামাকে অফিসে থাকতে হয়।আমার অফিস বনানী আর বাসা এয়ারপোর্ট কাজেই আমাকে ৮. ৩০ থেকে ৯.০০ টার মধ্যে রওনা দিতে হয়। তাই ৭.৩০ থেকে ৮.০০ টার মধ্যে আমাকে ঘুম থেকে উঠা আমার জন্য বলতে গেলে ফরজ। অফিসে আমার কাজ হচ্ছে প্রধানত টাইপ করা তবে মাঝে মাঝে বিভিন্ন কাজে বাহিরে যেমন ব্যাংকে বা অন্য কাজে বাহিরে যেতে হয়।আমার ছুটি হয় ৮.০০ থেকে ৯.৩০টার মধ্যে বাসায় ফিরতে ফিরতে ৯.০০ থেকে ১০.০০ বেজে যায়। সমস্যা হচ্ছে রাতে ৪.০০ থেকে ৫.০০ আগে আমার কখনও ঘুম আসে না।৪/৫ পর ঘুমানোর পর কোন ভাবেই ১০টার আগে ঘুম থেকে উঠতে পারি না। ৮টার এলার্ম দিয়ে রাখি কিন্তু এলার্ম  বাজলে ওটা বন্ধ করে আবার ঘুমিয়ে পরি। তারপর অফিসে এসেও ঝিমাই।এমনকি মাঝে মাঝে চেয়ারে বসে ঘুমিয়ে পরি।শরীরে তেমন শক্তি পাই না শরীর খুব দুর্বল মনে হয়।রাতে আমার যেমন ঘুম আসে না ঠিক উল্টো ভাবে দিনে প্রচন্ড বেগে ঘুম আসে। আমি একটি বিষয় লক্ষ করেছি যে, দিনে আমি যদি মাত্র ৫বা ১০ মিনিটের জন্যেও ঝিমাই বা ঘুমাই তাহলেই ঐদিন ৫/৬টার আগে ঘুম আসে না। আবার শত চেষ্টা করেও সারাদিন না ঘুমিয়ে থাকতে পারিনা নিজের ওজান্তে হলেও বা অনিচ্ছাকৃত ভাবে হলেও ১০/২০ মিনিটের জন্যে ঘুমিয়ে যাই। মানে দিনে ঘুম যখন আসে প্রচন্ড বেগে আসে নিজেকে কন্টোল করতে পারিনা। তবে আমি দিনে লংটাইম ঘুমাই না। ঘুম আসে না তাই ঐ সময় টা পিসিতে বসে নেট ব্রাউস করি। এখন আমি চাচ্ছি আমার দিনের বেলার ঘুমটা রাত্রে শিফট করতে। মানে দিনে যেমন আমার প্রচন্ড বেগে ঘুম আসে ঐ ঘুমটা দিনে না এসে রাত্রে ১১/১২টার দিকে আসুক তাহলে আমি বিশাল একটা যন্ত্রনা থেকে মুক্তি পাব।কারন অফিসে অলরেডি ২/৩ বার ওয়ারনিং দিয়ে ফেলেছে। তাই খুব সমস্যার মধ্যে আছি । যদি কোন বিজ্ঞ ভাইয়া এ ব্যাপারে কোন বেটার সলিশন দেন তাহলে খুবই উপকৃত হব এবং কৃতজ্ঞ থাকব। প্রসঙ্গত আমি কোন প্রকান নেশা করি না।আমার এসমস্যা টা  প্রায় ২ বছর যাবত। আমার পরিবারের অন্য সবাই যখন দুপুরের খাবারের পর ঘুমায় তখন আমিও যদি তাদের মত ২/১ ঘন্টা ঘুমাই তাহলে রাতে আমার আর ৪/৫টার আগে ঘুম আসে না কিন্তু ওদের ঠিকই ঘুম আসে।

 

1 Subscribers
Submit Answer
Please login to submit answer.

3 Answers
Sort By:
Best Answer
0
AnswersBD Administrator May 13, 2014 01:07 PM
Flag(0)

ঘুম মানুষের জীবনের একটি অবিচ্ছেদ্য অংশ। ঘুম কম হলেও সমস্যা আবার অতিরিক্ত হলেও সমস্যা।তবে,নিয়মমাফিক ঘুমানো উত্তম কাজ।

যাইহোক, আপনি যেহেতু বেশি রাত করে ঘুমান সেহেতু আপনার ঘুম ভাঙ্গতে বেশি বেলা হওয়াটাই স্বাভাবিক। আপনাকে যা যা করতে হবেঃ
1. আপনি মানষিকভাবে প্রস্তুত হোন,এই ভেবে যে,আপনি আজ তাড়াতাড়ি ঘুমাবেন।
2. রাতের খাবারটা ১১টার মধ্যে শেষ করে সাড়ে ১১টায় বিছানায় যেতে হবে।
3. বিছানা সবসময় পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে।
4. সিগারেট কম খেতে হবে এবং চা পান করা একদম ছেড়ে দিতে হবে। চা খেলে সহজে ঘুম আসে না।
5. শুয়ে শুয়ে মোবাইল চাপবেন না। এতে ঘুম পালিয়ে যাবে।
6. প্রতিদিন অন্তত দুইবার স্নান করবেন। ঘুমাতে যাবায় আগে একবার করতে হবে।এতে দেহ ফ্রেশ হবে ও ক্লান্তি দূর হবে।তাড়াতাড়ি ঘুম চলে আসবে।
7. চায়ের পরিবর্তে লেবুর শরবত খাবেন।
8. ঘুমের ঔষধ,পাওয়ারি ঔষধ ও রঙ্গিন পানি পান করা থেকে এড়িয়ে চলতে হবে।
9. রাতজেগে বইপড়া,সংবাদপাঠ,টিভি দেখা থেকে বিরত থাকতে হবে।

এগুলো নিয়মিত করলে এক সপ্তাহের মধ্যে ঠিক হয়ে যাবে ,আশা করি।

Sign in to Reply
Replying as Submit
Best Answer
0
AnswersBD Administrator Apr 22, 2014 12:40 AM
Flag(0)

অনিদ্রা দূর করতে কি করবেন

সপ্তাহে তিন দিন বা তার বেশি ঘুম না আসা, বারবার ঘুম ভেঙে যাওয়া, ঘুমোতে সমস্যা, অল্প সময় ঘুম হওয়া এবং ঘুম থেকে ওঠার পর ক্লান্তি ভাব, সারা দিন খিটখিটে ভাব ইত্যাদি ইনসোমনিয়া বা অনিদ্রার লক্ষণ। মস্তিষ্কের নিউরোহরমোনাল অসামঞ্জস্য অনিদ্রার অন্যতম কারণ।

এমন সমস্যার কারণে কর্মক্ষমতা, বুদ্ধিমত্তা ও মনোযোগ কমতে পারে। শারীরিক ক্ষতিও হতে পারে। যেমন: ওজনাধিক্য, রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা হ্রাস, ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ ও হূদেরাগের ঝুঁকি বাড়ায়।
কারণ:
• মানসিক চাপ, দুশ্চিন্তা, বিষণ্নতা, মানসিক আঘাত-পরবর্তী পরিস্থিতি।
• ঘুমের পরিবেশের ব্যাঘাত যেমন: অতিরিক্ত শব্দ, আলো, গরম বা ঠান্ডা।
• ঘুমের নিয়মে পরিবর্তন, যা মস্তিষ্কে মেলাটোনিন হরমোন নিঃসরণে ব্যাঘাত সৃষ্টি করে।
• সন্ধ্যার পর ধূমপান, অতিরিক্ত ক্যাফেইন বা অ্যালকোহল সেবন।
• ঘুমের আগে টিভি দেখা, ভিডিও গেমস খেলা।
• দীর্ঘমেয়াদি শারীরিক অসুস্থতা, যেমন: see more—> http://www.homeopathybd.com/o-nidra

Sign in to Reply
Replying as Submit
Best Answer
0
AnswersBD Administrator Apr 09, 2013 10:56 AM
Flag(0)

বেশ ভাল সমস্যার মধ্যেই আছেন দেখছি!!

ঠিক বুঝতে পারছি না সারাদিন অফিস করার পরও কিভাবে রাত ৪-৫ টা পর্যং ঘুম আসে না… স্বাভাবিক ভাবে এতক্ষন পর্যন্ত জেগে থাকার কথা না…

আপনার ক্ষেত্রে কি কি ঘটছে তা এরো জানা দরকার

যেমনঃ

#এত রাত পর্যন্ত কি করেন ?

#ফোনে কথা বলার অভ্যাস আছে বা ছিল কিনা ?

#কারো সাথে আড্ডায় পড়ছেন কিনা ?

#কম্পিউটারে গেম এর প্রতি আসক্ত আছেন বা ছিল কিনা ?

#রাত জেগে সিনেমা-মুভি দেখার অভ্যেস আছে বা ছিল কিনা ?

#রাত জেগে গল্পের বই-উপন্যাস পড়ার অভ্যেস ছিল বা আছে কিনা ?

#আপনার পরিবারের সবাই গভীর রাত পর্যন্ত জেগে থাকে কিনা ?

Sign in to Reply
Replying as Submit