ইসলামী আইনে নারীরা উত্তরাধিকার সূত্রে কেন পুরুষের তুলনায় অর্ধেক সম্পত্তি লাভ করে ?

Administrator Member Since Oct 2016
Flag(0)
Oct 23, 2012 04:43 AM 1 Answers
Subscribe

1 Subscribers
Submit Answer
Please login to submit answer.

1 Answers
Sort By:
Best Answer
0
AnswersBD Administrator Oct 23, 2012 01:42 PM
Flag(0)

এটা সমাজে ব্যালেন্স রক্ষার জন্য । তাছাড়া একজন নারী শুধু বাবার সম্পত্তিই পাই না , সে তার স্বামীর,ছেলের সম্পত্তির  উত্তরাধিকারী । অপর দিকে ছেলে শুধুই বাবার সম্পত্তির উত্তরাধিকারী । আরেকটি বিষয় বাবা চাইলেই তার ছেলে-মেয়েকে সমান ভাগ দিয়ে যেতে পারেন এতে ইসলামের বাধা নিষেধ নাই , বাবা চাইলে ছেলেকে সমম্পত্তি থেকে বঞ্চিত ও করতে পারেন । এই বিধান শুধু মাত্র সেই ভাই-বোনের জন্য প্রযোজ্য যাদের বাবা উইল করে যান নি।আমেরিকাতে একজন  মেয়ে একই পজিশনে থেকে শতকারা ৭০ টাকা বেতন পায় যেখানে ছেলেরা ১০০ টাকা । এর কারণ হচ্ছে ফ্যামেলি বাইন্ডিং -কে শক্ত রাখা , আর রিপাবলিকান পার্টি তা ৭০ থেকে কমিয়ে ৫০% আনার পক্ষপাতি । এইটা এই জন্য যে স্বামীর  উপর যাতে স্ত্রীর নির্ভশীলতা বৃদ্ধি পায় , এবং বন্ধন অটুট থাকে ।

 

ইসলামে, বাবার মৃত্যুর পর  বোনের এর সম্পূর্ণ দায়দায়িত্ব ভাইয়ের উপর । আর যখন সম্পত্তিতে ভাগ হবে তখন ভাই কখনো তার বোনের উপর বিয়ে-সাদী- সহ যাবতীয় খরচের কোন দায় খাটাতে পারবে না ।

যদি আপনি সিভিল আইনে যান, তাহলে একজন ভাই তার বোনকে বড় করে নিজের টাকায় বিয়ে দেওয়ার পর যদি বোন সিভিল আইনে, বাবার রেখে যাওয়া জমির উপর অর্ধেক দাবি করে তখন ভাই যদি বোনের ভরণ-পোষনের খরচ চায়, তখন কিন্তু বোন বাধ্য সেই খরচ গণনায় আনতে । ( এখানে বাবার পতিত জমি বা বাড়ির উদাহরণ দিলাম, যাতে কোন নির্দিষ্ট আয় নেয় ) ।

তাই ইসলাম সব দিকে লক্ষ রেখে একটি ব্যালেন্স তৈরী করে দিয়েছে । সিভিল আইন দিয়ে এই বিষয় গুলো দেখলে স্পিরিচোয়ালিটি কমে যাবে ।                         

সব আইন গুলোকে সেকুলার করে নেওয়াটা বোকামী, আমার মতে বিবাহ,জানাযা,পারিবারি সম্পত্তি বিষয়ক আইনগুলো   ধর্মের উপর নাস্ত রাখাই মঙ্গল জনক ।        

      

উত্তরাধিকা

   

Sign in to Reply
Replying as Submit