‘চা’ কি? এর উৎপত্তিস্থল কোথায়?

Please check these topics first.

    Administrator Member Since Oct 2016
    Flag(0)
    Sep 28, 2012 03:10 PM 1 Answers
    Subscribe

    1 Subscribers
    Submit Answer
    Please login to submit answer.

    1 Answers
    Sort By:
    Best Answer
    0
    AnswersBD Administrator Sep 28, 2012 03:22 PM
    Flag(0)

    চা (ইংরেজি ভাষায়: Camellia sinensis) উদ্ভিদের পাতা, পর্ব ও মুকুলের কৃষিজাত পণ্য যা বিভিন্ন উপায়ে প্রস্তুত করা হয়। এছাড়া ‘চা’ বলতে এক ধরণের সুগন্ধযুক্ত ও স্বাদবিশিষ্ট পানীয়কেও বোঝানো হয়। এই পানীয় ক্যামেলিয়া সিনেনসিন গাছের পাতাকে বিশেষ উপায়ে প্রস্তুতের মাধ্যমে গরম পানিতে মিশিয়ে তৈরি করা হয়। ক্যামেলিয়া সিনেনসিন গাছের সাধারণ নামও চা। পানির পরেই চা বিশ্বের সর্বাধিক ব্যবহৃত পানীয়। এর একধরণের স্নিগ্ধ, প্রশান্তিদায়ক স্বাদ রয়েছে এবং অনেকেই এটি উপভোগ করে। প্রায় ছয় ধরণের চা রয়েছে: সাদা চা, হলুদ চা, সবুজ চা, উলং চা, কাল চা এবং পুয়ের চা। তবে সর্বাধিক পরিচিত ও ব্যবহৃত চা হল সাদা, সবুজ, উলং এবং কাল চা। প্রায় সবরকম চা-ই ক্যামেলিয়া সিনেনসিন থেকে তৈরি হলেও বিভিন্ন উপায়ে প্রস্তুতের কারণে এক এক ধরণের চা এক এক রকম স্বাদযুক্ত। পুয়ের চা একধরণের গাঁজনোত্তর চা যা অনেক ক্ষেত্রে ঔষধ হিসেবে ব্যবহৃত হয়। কিছু কিছু চায়ে ক্যামেলিয়া সিনেনসিন থাকে না। ভেষজ চা হল একধরণের নিষিক্ত পাতা, ফুল, লতা ও উদ্ভিদের অন্যান্য অংশ যাতে কোন ক্যামেলিয়া সিনেনসিন নেই। লাল চা সাধারণত কাল চা (কোরিয়া, চীন ও জাপানে ব্যবহৃত হয়) অথবা দক্ষিণ আফ্রিকার রুইবস গাছ থেকে তৈরি হয় এবং এতেও কোন ক্যামেলিয়া সিনেনসিন নেই। এক গবেষণায় দেখা গেছে ২০০৮ খ্রিস্টাব্দে সারা বিশ্বে ৩৮,০০,০০০ টন চা পাতা উৎপাদিত হয়েছে। চা উৎপাদনের দিক থেকে এগিয়ে আছে চীন, ভারত, কেনিয়া, শ্রীলঙ্কা।

    উৎপত্তিস্থলঃ চীন।

    পরিচয়কালঃ প্রায় খ্রিস্টপূর্ব ১০ম শতাব্দি।

    Sign in to Reply
    Replying as Submit