আমি হস্ত মৈথুনের কারনে বিভিন্ন সমস্যা বোধ করছি পরামর্শ চাই ।

Administrator Member Since Oct 2016
Flag(0)
Nov 01, 2013 09:46 PM 1 Answers
Subscribe

আমার বয়স ২৫।  আমি একজন ছাত্র। আমি গত ৫-৬ বছর ধরে হস্ত মৈথুন করছি। প্রথম দিকে আমি অনেক বেশি আসক্ত ছিলাম প্রায় প্রতিদিনি করতাম। কিন্তু গত ২ বছর ধরে আমি নিজেকে অনেক সংযমী করেছি। কিন্তু তারপরও মাঝে মাঝে পর্ণ ছবি দেখি আর শুয়ে শুয়ে কাজটা আবার করে ফেলি। অর্থাৎ আমার যখন বেশী সেক্স করতে ইচ্ছে হয় তখনই নিজেকে আর থামাতে পারিনা। 

কিন্তু এখন আমি অনেক সমস্যা অনুভব করছি, যেমন  ঃ

১। আমার লিঙ্গতে আগের মত শক্তি পাচ্ছিনা।

২। খুব অল্প সময়েই আমার বীর্যপাত হচ্ছে।

৩। তরল পদার্থটার পরিমাণ ও  অনেক কমে গেছে। 

৪। অল্প উত্তেজনাতেই তরল বেরিয়ে আসছে ।

৫। তাছাড়া শারিরিক দুর্বলতা এবং চোখ জ্বাল পোড়াও আছে।

আসলে আমি আগে হস্ত মৈথুন কি, এর প্রভাব কি এসব কিছুই জানতাম না। যখন জানতে পারি তখন থেকে নিজেকে সামলানোর চেষ্টা করছি। আমি এখন খুবই আতঙ্কে আছি। আমি কিভাবে আমার আগের সুস্থতা ফিরে পেতে পারি ?

আমার কি কোন ডাক্তারের পরামর্শ মেনেচলা উচিত ? দয়া করে জরুরি ভিত্তিতে জানাবেন।  

1 Subscribers
Submit Answer
Please login to submit answer.

1 Answers
Sort By:
Best Answer
0
AnswersBD Administrator Jun 12, 2014 01:28 PM
Flag(0)

দ্রুত বীর্যপাত বন্ধ করতে হোমিওপ্যাথি চিকিৎসা

প্রি-ম্যাচিউর ইজেকুলেশন হল দ্রুত বীর্যপাত। যদি নিয়মিত সঙ্গি এবং সঙ্গিনীর ইচ্ছার চেয়ে দ্রুত বীর্যপাত ঘটে অর্থাৎ যৌনসঙ্গম শুরু করার আগেই কিংবা যৌনসঙ্গম শুরুর একটু পরেই বীর্যপাত ঘটে যায়- তাহলে যে সমস্যাটি বুঝা যাবে তার নাম প্রি-ম্যাচিউর ইজেকুলেশন। প্রি-ম্যাচিউর ইজেকুলেশন একটি সাধারণ যৌনগত সমস্যা। প্রতি ৩ জন পুরুষের মধ্যে ১ জন এ সমস্যায় ভোগে থাকেন।

একসময়ে ধারণা করা হতো, প্রি-ম্যাচিউর ইজাকুলেশন বা দ্রুত বীর্যপাতের কারণ হলো সম্পূর্ণ মানসিক; বর্তমানে বিশেষজ্ঞদের মতে, প্রি-মেচিউর ইজেকুলেশন বা দ্রুত বীর্যপাতের ক্ষেত্রে শারীরিক বিষয়গুলো গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। কিছু পুরুষের ক্ষেত্রে দ্রুত বীর্যপাতের সাথে পুরুষত্বহীনতার সম্পর্ক রয়েছে। বর্তমানে অনেক চিকিৎসা বেরিয়েছে- যেমন বিভিন্ন ওষুধ, মনস্তাত্ত্বিক কাউন্সেলিং ও বিভিন্ন যৌনপদ্ধতির শিক্ষা। এগুলো বীর্যপাতকে  see more…

হস্তমৈথুন ছাড়ার উপায় সমূহ : I need to leave my habit of masturbation

হস্তমৈথুন খুব বেশি করলে এবং সেই অনুপাতে শরীরের যত্ন না নিলে শারীরিক ও মানসিক ভাবে ক্লান্তি আসতে পারে। হস্তমৈথুন যাদের কাছে  নেশার মত মনে হয়, এবং মনে প্রাণে কমিয়ে দিতে চাইছেন, তাদের জন্য কিছু ব্যবস্থা করণীয় হতে পারে-

প্রথমেই মনে রাখতে হবে, হস্তমৈথুন বা স্বমেহন প্রাণীদের একটা স্বাভাবিক প্রক্রিয়া। এটা করে ফেলে কোন প্রকার অনুশোচনা, পাপ, বা অপরাধবোধ হলে ব্যাপারটা সব সময় মাথার মধ্যে ঘুরবে এবং এ থেকে মুক্তি পেতে আবার এটা করে শরীর অবশ করে ফেলতে ইচ্ছে হবে। তবে মনে রাখবেন ইসলামের বিধি বিধান অনুসারে এটা করা মহা পাপ। তাই হস্তমৈথুন যদি আপনার অভ্যাস এ পরিনত হয় তাহলে ত্যাগ করার জন্য নিচের পদ্ধতি গুলো অনুসরণ করুন।

মনে রাখবেন আপনি মানুষ। আর মানুষ মাত্রই ভুল করে। এটা করে ফেলার পর যদি মনে করেন ভুল হয়ে গেছে তো সেজন্য আল্লাহর  কাছে ক্ষমা চান, তিনি ক্ষমাশীল। নিজেকে শাস্তি দেবেন না। বরং দৃঢ় প্রতিজ্ঞ হোন যাতে ভবিষ্যতে মন শক্ত রাখতে পারেন এটি ছাড়ার  জন্য। যেসব ব্যাপার আপনাকে হস্তমৈথুনের দিকে ধাবিত করে, সেগুলো ছুড়ে ফেলুন, সেগুলো থেকে দূরে থাকুন।

যদি মাত্রাতিরিক্ত হস্তমৈথুন থেকে সত্যি সত্য মুক্তি পেতে চান তাহলে পর্ণ মুভি বা চটির কালেকশন থাকলে সেগুলো এক্ষুনি নষ্ট করে ফেলুন। পুড়িয়ে বা ছিড়ে ফেলুন। হার্ডড্রাইব বা মেমরি থেকে এক্ষুনি ডিলিট করে দিন। ইন্টারনেট ব্যবহারের আগে ব্রাউজারে প্যারেন্টাল কন্ট্রোল-এ গিয়ে এডাল্ট কন্টেন্ট ব্লক করে দিন। কোন সেক্স টয় থাকলে এক্ষুনি গার্বেজ করে দিন।

কোন কোন সময় হস্তমৈথুন বেশি করেন, সেই see more http://www.homeopathybd.com/masturbation-is-a-way-of-leaving/

 

Sign in to Reply
Replying as Submit